Nagad

নগদ এর এজেন্ট বা উদ্যোক্তা হয়ে যেভাবে ব্যবসা করবেন

তথ্যপ্রযুক্তি বাণিজ্য
আজকে আমরা বাংলাদেশে বহুল প্রচলিত মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা ব্যবসা নিয়ে আলোচনা করব। নগদ হচ্ছে সরকারি ডাক বিভাগের একটি মোবাইল ব্যংকিং ব্যবস্থা। এ ব্যবস্থার মাধ্যমে তারা দেশের প্রায় প্রতিটি মানুষকে এই মোবাইল ব্যংকিং ব্যবস্থার সাথে যুক্ত করতে চায়। বর্তমানে সারা দেশে তারা ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য নগদ উদ্যোক্তা নিয়োগ দিচ্ছে।
আমাদের মধ্যে দেখা যায় অনেকে আছে যারা সাইড ব্যবসা হিসাবে কিছু করতে চান, কিন্তু কিভাবে এজেন্ট নিতে হবে এবং কত টাকায় কত লাভ হবে এসব বিষয় না জানার কারনে এ ব্যবসাটি করতে পারছেন না। আজকে আমরা ১. নগদ এজেন্ট হতে হলে কি কি লাগে ২. নগদ এজেন্ট এর লাভ বা কমিশন কত ৩. নগদ এজেন্ট ব্যবসা আমরা কেন করব ৪. নগদ এর একাউন্ট কোড ৫. একটা নগদ একাউন্ট খুলতে কি ডকুমেন্ট লাগে এবং মিনিমাম কত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে এ সব বিষয় নিয়ে আমরা আলোচনা করব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

 

আপনি কেন নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা হবেন?
দেখা যায় আমরা সাধারনত মোবাইল ব্যংকিং ব্যবসা করি দোকানের সাইড ব্যবসা হিসেবে বা দোকানে কাস্টমার বৃদ্ধি করতে। অনুরুপ নগদ এজেন্ট ব্যবসা একটি দোকানের সাইড ব্যবসা হিসেবে একটি লাভজনক ব্যবসা হতে পারে। তবে আমাদের মধ্যে অনেকের প্রশ্ন থাকে বিকাশ বা রকেট এজেন্ট এর সাথে নগদ এজেন্ট চালানো যাবে কি না? অবশ্যই করা যাবে যদি আপনার ইচ্ছা থাকে।

 

নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা হতে হলে কি কি ডকুমেন্ট লাগে?
অন্যান্য মোবাইল ব্যংকিং এজেন্ট নিতে যা যা লাগে ঠিক নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা নিতেও তাই লাগে। এর পরেও যারা জানেন না তাদের জন্য উল্লেখ করছি, ১. আপনার দোকানের ট্রেড লাইসেন্স যার মেয়াদ আছে। ২. যার নামে ট্রেড লাইসেন্স করা তার ছবি এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ডের ফটোকপি ৩. দোকানের একটা সিল ৪. একটা সিম কার্ড যাতে আগে কোন নগদ একাউন্ট ছিল না।

 

কিভাবে একজন এজেন্ট বা উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য আবেদন করবেন?
এজেন্ট হতে হলে প্রথমত উপরে উল্লেখিত কাগজ পত্র ঠিক থাকলে আপনার এলাকার নগদ ডিস্ট্রিবিউশন এর প্রতিনিধির সাথে আলোচনা করবেন। যদি আপনি তাদের না চিনে থাকেন তাহলে আপনার নিকটস্থ নগদ এজেন্ট থেকে তাদের সাথে যোগাযোগের নাম্বার নিয়ে নিবেন। তাদের কাছে আপনি সকল ডকুমেন্ট দিয়ে দিলে তারা আপনাকে এজেন্ট এর সিম দিয়ে দিবে। এ ছাড়া আপনি নগদ এর ডিস্ট্রিবিউশন হাউসে গিয়ে কাগজ পত্র জমা দিয়ে আসতে পারেন। তারা আপনার ডকুমেন্ট যাচাই বাছাই করে নগদ এজেন্ট দেওয়ার উপযুক্ত মনে হলে এজেন্ট সিম দিয়ে দিবে। তবে ডকুমেন্ট যাচাই বাছাই করতে ২০ থেকে ২৮ দিন সময় লাগতে পারে।

 

মিনিমাম কত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে?
এই ব্যবসায় ইনভেস্ট যত বেশি হবে আপনার লাভ তত বেশি হবে। যদি মোবাইল ব্যংকিং সার্ভিসে আপনি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে বেশি ইনভেস্ট করবে না। তবে কম হলেও ১০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করার চেষ্টা করবেন।

 

নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তা ব্যবসায় লাভ বা কমিশন কেমন?
নগদ এজেন্ট ব্যবসায় লাভ হলো কাস্টমারের টাকা উঠানো এবং পাঠানোর উপর ভিত্তি করে। যদি কাস্টমার ১ হাজার টাকা পাঠায় এবং উঠায় তাহলে প্রতি হাজারে ৪.১০ পয়সা করে পাবেন। প্রতি লাখে ৪১০ টাকা করে পাবেন। এ ছাড়াও কাস্টমারকে নতুন একাউন্ট খুলে দিলে বাড়তি টাকা পাবেন। আপনার প্রাপ্য টাকা সাথে সাথে আপনার এজেন্ট একাউন্টে যোগ হয়ে যাবে।

 

বর্তমানে নগদ এজেন্ট বা উদ্যোক্তারবাস্তবতা?
বর্তমানে নগদ সারা দেশেই ডিস্ট্রিবিউশন হাউস খুলছে। এতে করে সারা দেশে এজেন্ট এর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার ফলে কাস্টমার এর সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। নগদ তাদের কাস্টমার এর সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধির জন্য তাদের লেনদেন এর লিমিট দৈনিক ৫০ হাজার করেছে। সবশেষে আশা করা যায় খুব দ্রুতই বিকাশের মত নগদ একটি জনপ্রিয় মোবাইল ব্যংকিং মাধ্যম হিসেবে পরিণত হবে। যারা নগদ এজেন্ট হিসেবে রয়েছে তাদের নগদ এজেন্ট একটি লাভজনক ব্যবসা হিসেবে পরিণত হবে।

 

নগদ এজেন্ট ব্যবসায় কিছু সর্তকতাঃ
নগদ এজেন্ট ব্যবসা করতে গেলে দেখা যাবে অনেক হেকার আপনাকে ফোন দিয়ে বিভিন্ন বিষয়ের লোভ দেখিয়ে আপনার কাছে বিভিন্ন তথ্য যানতে চাইবে। কখনো তাদের সাথে ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করবেন না। এরুপ করে থাকলে আপনার সমস্ত টাকা তারা নিয়ে যাবে। ( সবশেষ কথা হলো নগদ কর্তৃক দেয়া অইন মেনে চলুন। মানি লন্ডারিং এর আইন মেনে চলুন। কোন লেনদেন সন্দেহ বা অবৈধ মনে হলে আপনার ডিএসওকে যানান না হলে আপনার বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থায় নেওয়া হবে)।

 

আপনাদের কিছু প্রশ্ন এবং তার উত্তর
১. নগদ এর কোড কত বা নগদ একাউন্ট চেক করে কি দিয়ে? উত্তরঃ *167# ২. নগদ এর ক্যাশ আউট চার্জ কত? উত্তরঃ এপস এঃ ৯.৯৯ টাকা এবল ইউএসডিতেঃ ১২.৯৯ টাকা। তবে তাদের দেয়া বিভিন্ন অফার এর কারনে এর পরিমাণ কম বেশি হতে পারে। ৩. নগদ এর পিন নাম্বার ভুলে গেলে কি করব? উত্তরঃ যদি আপনি আপনার পিন নাম্বার ভুলে যান তাহলে সরাসরি কাস্টমার কেয়ার এর নাম্বারঃ 16167 তে কল করুন। তারা আপনার একাউন্ট এর কিছু তথ্য চাইবে, যেমনঃ যে ন্যাশনাল আইডি কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলেছেন তার তথ্য। যদি সকল তথ্য সঠিক হয় তাহলে তারা আপনার পিনটি রিসেট করে দিবে। নতুন করে পিন নাম্বার দিলে আপনার একাউন্ট পুনরায় চালু হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.