জীবন পাল্টে দেবে তামিমের: মাশরাফি

খেলাধুলা বাংলাদেশ

সবাইকে অবাক করে তামিম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। তার এই সিদ্ধান্ত নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা উচিত কিনা- এটা নিয়ে গত মাসখানেক ধরে দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে আলোচনা চলছিল। মিডিয়াতেও নিয়মিত নিউজ হচ্ছিল।

 তবে মাশরাফি বিন মুর্তজা এই সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক হিসেবেই নিয়েছেন। ব্যাক্তিগত ফেসবুক পেজে ম্যাশ লিখেছেন, ‘কোনো সন্দেহ নেই তামিম বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন। ওর পরিসংখ্যানও তা-ই বলে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার সব যোগ্যতাই ওর আছে। ক্রিকেট বোর্ড, টিম ম্যানেজমেন্ট সবাই ওকে টিমে রাখবে, এটা সবারই জানা। তামিম কেন এ সিদ্ধান্ত নিল, তার যুক্তিও আছে অনেক। তামিমের চোট, এটা প্রথম ব্যাপার। তার ওপর সে গত চারটি সিরিজের ১৬টা ম্যাচ খেলতে পারেনি। কোনো ম্যাচ না খেলে হঠাৎ করে মাঠে নামার পর নিজের ওপর বিশাল চাপ সৃষ্টি হবে। পরে সেটি ওয়ানডে আর টেস্টেও রয়ে যেতে পারে।’

মাশরাফি আরো লিখেছেন, ‘সবচেয়ে বড় বিষয়টা হচ্ছে, তামিমকে ড্রেসিংরুমে সবাই খুবই পছন্দ করে। কিন্তু ১৬টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ বা অনুশীলন ম্যাচ ছাড়া দলে ঢুকলে এবার ওকে সবাই কতটা স্বাগত জানাত, সেটি হয়তো ওকে ভাবিয়েছে। কোনো কোনো সিদ্ধান্ত মানুষের জীবন পাল্টে দেয়। এ সিদ্ধান্তের পর তামিম যখন পরের ম্যাচে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে মাঠে নামবে, তখন সৌম্য, লিটন, নাঈমরাই ওর জন্য জীবন বাজি রেখে খেলবে। কারণ, কেউ রাখুক আর না-ই রাখুক, তামিম ওদের কঠোর পরিশ্রমের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেছে।’

মাশরাফি শেষে লিখেছেন, ‘তামিম এখনো সেরাদের সেরা এবং সে সেরাদের সেরা হয়েই থাকবে। টি-টোয়েন্টিতে জোর করে খেলে অবশ্যই টেস্ট আর ওয়ানডেতে দলের সেরা ব্যাটসম্যানকে নিষ্প্রভ কেউ দেখতে চাইবে না। তামিমের এখনো অনেক ম্যাচ জেতানোর বাকি আছে। তামিম, তোমাকে আমরা অবশ্যই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মিস করব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.